বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪ ইং         ১২:৪৪ অপরাহ্ন
  • মেনু নির্বাচন করুন

    এক বছর আগে মারা যাওয়া বিএনপি নেতা পুলিশ বক্স ভাঙচুর মামলায় আসামি


    ফাইল ছবি
    শেয়ার করুনঃ

    ২৮ অক্টোবর ঢাকায় মহাসমাবেশ করে বিএনপি। পল্টন এলাকায় সমাবেশ চলাকালেই শুরু হয় সংঘর্ষ। পরে সেটি ছড়িয়ে পড়ে আশপাশ এলাকায়। সেদিন বিকেলে রামপুরা থানার ডিআইটি রোডে ভাঙচুর হয় ট্রাফিক পুলিশ বক্স। এ ঘটনায় বিএনপি-জামায়াতের ২৪১ জনকে আসামি করে মামলা করেন রামপুরা থানার এসআই আব্দুল জলিল।

    মামলার এজাহারের ৮৮ নম্বরে নাম রয়েছে বিএনপির ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক নাসির রহমানের (৪৫)। তবে ঘটনার এক বছর আগে লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বিএনপির এ নেতা। মৃত নাসিরের নাম মামলার দুদিন পর সংশোধনের আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা, রামপুরা থানার এসআই শ্রী চম্পক চক্রবর্তী।

    আবেদনে তদন্ত কর্মকর্তা উল্লেখ করেন, ভুলবশত এজাহারে নাসিরের নাম লেখা হয়েছে। তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনটি নথিভুক্ত করেছেন আদালত।

    মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শ্রী চম্পক চক্রবর্তী ৩১ অক্টোবর এজাহার সংশোধনের আবেদন করেন। আবেদনে তিনি উল্লেখ করেন, মামলার এজাহারনামীয় আসামি বিএনপির ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক নাসির রহমানের নাম সোর্সের মাধ্যমে প্রাপ্ত হয়ে এজাহারে অন্তর্ভুক্ত করেন বাদী। বিষয়টি আমি প্রাথমিক তদন্তকালে এলাকার লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পারি। উল্লিখিত আসামি ইতিপূর্বে মৃত্যুবরণ করেছেন। আসামি নাসিরের নাম মামলার এজাহার থেকে বিয়োজনপূর্বক এজাহার সংশোধন একান্ত প্রয়োজন।

    মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২৮ অক্টোবর মহাসমাবেশের বিকেলে বিএনপির নামীয় ও অজ্ঞাতনামা ১৪০০ থেকে ১৫০০ জন নেতাকর্মী মৌচাক মার্কেটের দিক থেকে পুলিশের ওপর আক্রমণ করে। এসময় তারা অগ্নিসংযোগ ও ককটেল বিস্ফোরণ করতে করতে মালিবাগ রেলগেট পার হয়ে এসে রামপুরা থানার ডিআইটি রোডের ওপর ট্রাফিক পুলিশ বক্স ভাঙচুর করে। এতে ৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়। আহত হন তিন পুলিশ সদস্য।

    এ বিষয়ে মামলার বাদী আব্দুল জলিল জাগো নিউজকে বলেন, ভুলবশত নাসিরের নাম মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

    মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শ্রী চম্পক চক্রবর্তী গণমাধ্যমকে বলেন, ভুলবশত মামলার এজাহারে নাসিরের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। তা সংশোধনের জন্য আদালতে আবেদন করা হয়েছে।

    মৃত্যুর পরও আসামি হওয়া নাসির রহমানের স্ত্রী রিনা রহমান জাগো নিউজকে বলেন, গত বছরের ৭ অক্টোবর লিভার সিরোসিসে তিনি মারা গেছেন। মৃত ব্যক্তির নাম এজাহারে দেওয়া হয়েছে। এটা হাস্যকর।

    বিএনপির নেতাকর্মীদের আইনজীবী সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন, এক বছর আগে নাসির হোসেন মারা গেছেন। পুলিশ বক্স ভাঙচুরের মামলায় এজাহারে তার নাম দিয়েছে পুলিশ। এটি কোনো মতেই কাম্য নয়।


    আপনার মন্তব্য লিখুন
    © 2024 chhagalnaiya.com All Right Reserved.